Published On: Sat, Aug 18th, 2012

ঈদের নামাজের জন্য প্রস্তুত জাতীয় ঈদগাহ

শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যাওয়ার ভিত্তিতে রবি অথবা সোমবার ঈদ উল ফিতর উদযাপন করবে বাংলাদেশের মুসলমানরা। ঈদের সকালে মুসল্লিদের নামাজ আদায় নির্বিঘ্ন করতে ইতোমধ্যে সব প্রস্তুতি শেষ করেছেন সংশ্লিষ্টরা।
আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ঢাকায় ঈদের প্রধান জামাত হবে সকাল সাড়ে ৮টায় জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে। তবে ঈদের সকালে ঢাকায় বৃষ্টি থাকলে ৯টায় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে।
ঈদুল ফিতরের প্রধান জামায়াতের জন্য প্রস্তুত ২ লাখ ৬০ হাজার বর্গফুটের রাজধানীর জাতীয় ঈদগাহ ময়দান। মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিন রাষ্ট্রপতিসহ লাখো মুসল্লি নামাজ আদায় করবেন এই ঈদগাহে।
শনিবার বেলা ১১টার দিকে জাতীয় ঈদগাহে ঈদ জামাতের প্রস্তুতি পরিদর্শনে এসে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শাজাহান মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, সব দিক দিয়ে জাতীয় ঈদগাহ প্রস্তুত। নিরাপত্তাসহ মুসল্লীদের ঈদ জামাতের জন্য সব ধরনের আয়োজন সম্পন্ন হয়েছে।
মন্ত্রী বলেন, এখন যেহেতু বর্ষাকাল যে কোন সময় বৃষ্টি হতে পারে। সে বিষয়টি মাথায় রেখেই ঈদ জামাতের জন্য জাতীয় ঈদগাহকে প্রস্তুত করা হয়েছে।
তিনি বলেন, গত দু্ই বছর ধরে বৃষ্টির কথা চিন্তা করেই পুরো মাঠ ত্রিপল দিয়ে ঢেকে দেয়া হয়। যাতে বৃষ্টি হলেও নামাজ পড়তে কোন সমস্যা না হয়। এজন্য ঢাকা সিটি করপোরেশন, ধর্ম, আইন ও পূর্তমন্ত্রণালয় এক সাথে বসে আমরা পুরো মাঠে ত্রিপল টাঙ্গানোর সিদ্ধান্ত নেই। তারপর থেকে প্রতিবছরই  ঈদ জামাতের জন্য এমন আয়োজন করছি।
অন্যদিকে ঢাকা মেট্রপলিটন পুলিশের প্রধান বেনজির আহমেদ সকালে জাতীয় ঈদগাহ পরিদর্শন করেছেন। পরিদর্শন শেষে মাঠের নিরাপত্তা নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করে সাংবাদিকদের বলেন, পুরো রমজানে দু একটি ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্নভাবেই রমজানের রোজা পালন করতে পেরেছি। এজন্য পুলিশ প্রশাসন যথাযথভাবে তার দায়িত্ব পালন করেছে। এখন আমাদের সামনে দুটি চ্যালেঞ্জ একটি হচ্ছে জাতীয় ঈদগাহের নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা। কেননা এখানে রাষ্ট্রপতিসহ দেশের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা ঈদ জামাতে অংশ নেবে।
তিনি বলেন, শান্তিপূর্নভাবে ঈদ জামাত সম্পন্ন করতে পুরো ঈদগাহ ময়দান এবং তার আশ পাশ নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার চাদর দিয়ে ঢেকে ফেলা হয়েছে। র্যা ব সহ পুলিশের তিন স্তরের নিরাপত্তাবলায় তৈরি করা হয়েছে।
এছাড়া ঢাকা শহরের পাড়া মহল্লায় যে সব স্থানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সেসব স্থানেও নিরাপত্তা গ্রহণ করা হয়েছে পুলিশের পক্ষ থেকে।
প্রধান ঈদ জামাতের মাঠ তৈরিতে রোজার প্রায় শুরু থেকে কাজ করেছে দায়িত্বপ্রাপ্ত ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের শ’ শ’ শ্রমিক।
সরেজমিন ঘুরে দেখা যায় ঈদ জামাতের জন্য প্রস্তুতি প্রায় শেষে দিকে। অজুর কল সেট করা হয়ে গেছে। এখন বাকি আছে ফ্যান বসানো।
বৃষ্টির পানি যাতে ভেতরে প্রবেশ করতে না পারে, সে জন্য উপরে দেওয়া হয়েছে ওয়াটার প্রুফ কাপড়ের ছাউনি। পানি নিষ্কাশনের জন্য করা হয়েছে ড্রেনেজ ব্যবস্থা। ফলে বৃষ্টি হলেও এখানে ঈদের জামায়াত অনুষ্ঠিত হবে।
জাতীয় ঈদগাহে প্রবেশের জন্য থাকছে চারটি গেট। দুটি সর্বসাধারণের জন্য। একটি ভিআইপিদের জন্য। আর মহিলাদের জন্য একটি প্রবেশ পথ রাখা হয়েছে।
বরারবের মতো এবারো এখানে থাকছে ভিআইপিদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা। তাদের জন্য ভেতরে প্রায় ৩ হাজার বর্গফুট জায়গা আলাদা নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যে থাকবে।
মুসল্লিদের জন্য পুরো প্যান্ডেলে থাকছে ফ্যান ও টিউব লাইট। থাকছে ওযুর ব্যবস্থা। আর গাড়ি পার্কিং সুবিধা থাকছে কোর্ট চত্বর এবং গৃহায়ন ও গণপূর্ত অধিদপ্তরের খালি জায়গায়। মুসুল্লিদের সুবিধার জন্য থাকছে চারশ’ সিলিং ফ্যান, ৭০টি স্ট্যান্ড ফ্যান আর থাকবে একটি ভ্রাম্যমাণ শৌচাগার।
এদিকে, ঈদগাহ ময়দানের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কন্ট্রোল রুম বসিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। তিন স্তরের নিরাপত্তা বলায় তৈরি করা হয়েছে জাতীয় ঈদগাহে। এর মধ্যে রয়েছে কন্ট্রোল রুমে বসে চারদিকে বসানো সিসি ক্যামেরা দিয়ে সার্বক্ষণিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ, ইউনিফর্ম পরা নিরাপত্তাকর্মী ছাড়াও সাদা পোশাকে নিরাপত্তাকর্মীরা ময়দানের ভিতরে ও বাইরে অবস্থান করবে। এর সাথে সার্বক্ষণিক মেডিকেল সার্ভিসের ব্যবস্থা করা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমান, সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি, বিচারপতিরা, ঢাকা সিটি করপোরেশনের মেয়র, মন্ত্রিসভার সদস্য, সংসদ সদস্যরা, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা, ঢাকাস্থ বিভিন্ন মুসলিম দেশের মিশন প্রধান, সামরিক বাহিনীর অনেক সদস্য, সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা এই ময়দানে নামাজ আদায় করে থাকেন।

Leave a comment

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

ঢাকা সময়

অনলাইন জরিপঃ

'৫ মে শাপলা চত্বরে পুলিশ অপারেশেন না চালালে বাংলাদেশের অস্তিত্ব থাকত না' দাবি এইচটি ইমামের। আপনি কি তাই মনে করেন?

View Results

Loading ... Loading ...

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আহমাদ আলী
বার্তা প্রধানঃ রিদওয়ান আহমেদ
চীফ রিপোর্টারঃ মহিউদ্দিন আহমেদ
৮নং ডি.আই.টি এভিনিউ, মঞ্জুরী ভবন (৭ম তলা), মতিঝিল বা/এ, ঢাকা-১০০০
মুঠোফোন : ০১৭১৭-১৮১৬৭২, ০১৭১৫-০৯৩৮৬৫, ফোন-ফ্যাক্স : ০২-৯৫৫৪১৭৩
ই-মেইল : ridwanahmed92@ymail.com